একজন মরোক্কান নারীর বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হয়েছে যে তিনি তার প্রেমিককে হত্যা করার পর তার মাংস কেটে রান্না করে সংযুক্ত আরব আমিরাতের পাকিস্তানী শ্রমিকদের খাইয়েছেন।

কৌঁসুলিরা বলছেন, এই মহিলা – যার বয়েস ত্রিশের কোঠায় -তার প্রেমিককে হত্যা করেন তিন মাস আগে। তবে এই অপরাধের কথা জানা যায় অতি সম্প্রতি, যখন তার রান্নাঘরে ব্লেন্ডারের ভেতর মানুষের একটি দাঁত পাওয়া যায়।

আমিরাতের দি ন্যাশনাল নামের দৈনিক পত্রিকা এক রিপোর্টে বলেছে যে মহিলাটি পুলিশের কাছে এ কাজ করার কথা স্বীকার করেছেন।

আল আইন শহরের মহিলাটির সাথে সাত বছর ধরে নিহত ব্যক্তিটির প্রেমের সম্পর্ক ছিল। তবে যখন ওই ব্যক্তি তাকে বলেন যে তিনি মরোক্কোতে আরেক মহিলাকে বিয়ে করার পরিকল্পনা করছেন, তখন তাকে হত্যা করা হয়।

কিভাবে তাকে হত্যা করা হয়েছে তা পুলিশ প্রকাশ না করলেও, জানিয়েছে যে লোকটির মাংস এবং ভাত দিয়ে ঐতিহ্যবাহী পদ রান্না করে ওই এলাকায় পাকিস্তানী শ্রমিকদের খাইয়েছেন ওই মহিলা।

মহিলার ভাষায়, সেটা ছিল একটা ‘পাগলামি’র মুহূর্ত। হত্যার কথা পুলিশের কাছে স্বীকার করার পর তিনি অজ্ঞান হয়ে যান বলেও দুবাই-ভিত্তিক গালফ নিউজ জানিয়েছে।

খবরে বলা হয়, হত্যার পর তিনি তার ফ্ল্যাট পরিষ্কার করতে এক বন্ধুর সাহায্য নেন।

অভিযুক্ত মহিলাকে মানসিক স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে বলে খবরে বলা হয়।

জানা যায়, নিহত ব্যক্তির খোঁজে তার ভাই মহিলাটির ফ্ল্যাটে যান, মহিলাটি তাকে বলেন যে তার ভাইকে তিনি বাড়ি থেকে তাড়িয়ে দিয়েছেন।

কিন্তু পরে তার ভাই ঘরের ব্লেন্ডারের ভেতর একটি মানুষের দাঁত দেখতে পান। পরে পুলিশ ডিএনএ পরীক্ষার মাধ্যমে নিশ্চিত করে যে দাঁতটি নিখোঁজ ব্যক্তিরই।

ঘটনাটির এখন তদন্ত চলছে, এবং এর পর মহিলাটিকে বিচারের জন্য আদালতে আনা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *