টঙ্গীবাড়ীতে বিএনপি’র মনোনীত প্রার্থী মিজানুর রহমান সিনহার মনোনয়ন পত্র জমা প্রদানকে কেন্দ্র করে বিএনপি’র দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

47067709_530696420742343_8498289443126378496_n

সংঘর্ষের সময় সেখানে ককটেল বিস্ফোরণ ও গাড়ি ভাংচুরের ঘটনাও ঘটেছে। বুধবার দুপুরে টঙ্গীবাড়ী বাজারে এলাকায় পুলিশের উপস্থিতেই এ ঘটনা ঘটে। এসময় দুই পুলিশ সদস্য সহ উভয় পক্ষের ১০ জন আহত হয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ১৫ জনকে আটক করেছে।

47081282_357995281442835_8602886241974747136_n

জানা যায়, এখানে বিএনপি’র কেন্দ্রীয় কমিটির কোষাধ্যক্ষ মিজানুর রহমান সিনহা ও জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি রিপন মল্লিকের সাথে পূর্ব থেকে রাজনৈতিক বিরোধ চলে আসছিলো।

46830805_201308830789373_6678299598361985024_n

বুধবার দুপুর ১২টায় মিজান সিনহা বিএনপির মনোনীত প্রার্থী হিসাবে টঙ্গীবাড়ী রিটার্নিং অফিসারের কাছে মনোনয়ন পত্র জমা দিতে যায়। এ খবরে পূর্বে থেকেই টঙ্গীবাড়ী বাজার অবস্থান নেয়া কয়েক শতাধিক রিপন মল্লিক সমর্থক মিজান সিনহা’র সাথে আসা গাড়ির বহরকে লক্ষ্য করে লাঠি ও ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে তারা। এসময় ল্যান্ড ক্রোসার মডেলের একটি গাড়ির ভাংচুর হয়। ঘটনা স্থলে পুলিশের দুই সদস্য সহ ১০জন আহত হয়।

47099217_310819032864463_8664959647662211072_n

পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে উপজেলা বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক আক্তার মোল্লা ও বেতকা ইউনিয়ন যুবদলের সাধারণ সম্পাদক রিগ্যান শিকদার সহ ১৫জনকে আটক করে। আটককৃত অন্যন্যরা হলেন, শাহাদাত, আমির হোসেন, বিপ্লব, জনি, এরশাদ, মিজানুর , শহীদ ।

সহকারী রিটানিং অফিসার ও টঙ্গীবাড়ী উপজেলা নিবার্হী কর্মকতার হাতে মুন্সিগঞ্জ ২ আসনে বিএনপি দলীয় মনোনয়ন পত্র জমাদেন সাবেক স্বাস্থ্য মন্ত্রী মিজানুর রহমান সিনহা।

অপরদিকে জেলার মুন্সিগঞ্জ ২ আসনের (লৌহজং-টঙ্গীবাড়ী) লৌহজং উপজেলায় নির্বাহী কর্মকতা সহকারী রিটানিং অফিসারের হতে বিএনপি থেকে মনোনয়ন জমা দিয়েছেন এ্যাড: আব্দুস সালাম। এ আসনে বিএনপি’র দুইজন প্রার্থী মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছেন।

এদিকে মুন্সিগঞ্জ ৩ আসনে মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছেন মুন্সিগঞ্জ জেলা বিএনপির সভাপতি আলহাজ্ব আব্দুল হাই । বুধবার বিকাল সাড়ে ৪ টায় জেলা রিটানিং অফিসার ও মুন্সিগঞ্জ জেলা প্রশাসক সায়লা ফারজানার হাতে এই মনোনয়নপত্র জমা দেন । এসময় তার সাথে থেকে সেখানে উপস্থিত ছিলেন জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল কুদ্দুস ধীরেন,শহর বিএনপির সভাপতি এ কে এম ইরাদত মানু,বিএনপি নেতা এ্যাডভোকেট তোতা মিয়া।
এর আগে দুপুর ২ টায় আওয়ামীলীগ থেকে মনোনীত প্রার্থী কেন্দ্রীয় মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক অ্যাড: মৃণাল কান্তি দাস তার মনোনয়ন জমা দেন।

এ আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছেন মুন্সিগঞ্জ জেলা আ’লীগের সভাপতি মোহাম্মদ মহিউদ্দিনের বড় পুত্র বর্তমানে মুন্সিগঞ্জ পৌরসভার মেয়র হাজী ফয়সাল বিপ্লবের স্ত্রী চৌধুরী ফারিয়া আফরিন।

মুন্সিগঞ্জ-১ আসন (সিরাজদিখান-শ্রীনগর) বিএনপি থেকে মনোনয়ন জমা দিয়েছেন শাহ মোয়াজ্জেম। এছাড়াও জাতীয় পার্টিসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দল থেকেও মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *