মুন্সীগঞ্জে শিশু সন্তানকে হত্যার দায়ে মো: জুলহাস দেওয়ান (৫০) নামের একজনকে মৃত্যুদন্ডের আদেশ দিয়েছে আদালত। মঙ্গলবার দুপুরে মুন্সীগঞ্জ জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক হোসনে আরা বেগম এই আদেশ প্রদান করেন। এ সময় জুলহাসকে নগদ ৫০ হাজার টাকাও অর্থদন্ডে দন্ডিত করে।
মামলার সুত্রে জানাযায়, জুলহাস ২০১৪ সালের ১৩ অক্টোবর তার স্ত্রীর সাথে ঝগড়া করে আপন পুত্র মো: সাহাদ (৫ ) কে জোর পূর্বক বাড়ী থেকে  নিয়ে চলে যায়। এরপর সাহাদের মা জুলহাসকে ফোন করলে জুলহাস জানায় সাহাদকে হারিয়ে ফেলেছে। অনেক খোঁজাখুঁজি করার পর সন্তানকে না পেয়ে স্ত্রী তানিয়া আক্তার স্বামী জুলহাস ও দেবরকে আসামী করে মুন্সীগঞ্জ থানায় অভিযোগ করেন। অভিযোগের সুত্র ধরে পুলিশ জুলহাসকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে তার স্বীকারোক্তি অনুয়ায়ী নারায়নগঞ্জ জেলার সদর থানাধীন নতুন চর সৈয়দপুর কয়লাঘাটা এলাকার পরিত্যাক্ত ডোবা থেকে পুলিশ শিশু সাহাদের মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। এ সময় জুলহাস জানান সে তার ছেলেকে গলাটিকে হত্যা করে ডোবায় ফেলে রেখে চলে যায়।
পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে,১৯৯৯ সালে মুন্সীগঞ্জ সদরের মীরেশ্বরাই এলাকার আলী হোসেনের মেয়ে তানিয়ো বেগমের সঙ্গে একই ইউনিয়ন পঞ্চসারের পশ্চিম মুক্তারপুর নিবাসী কামাল দেওয়ানের ছেলের সঙ্গে বিয়ে হয়। ফাহাদ ছিলো তাদের একমাত্র সন্তান। জুলহাস দেওয়ান মাদকাক্ত ছিলো বলে দাবী পরিবারের।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *